• বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩২ পূর্বাহ্ন
Headline
সমাজ উন্নয়নে অংশীদারীত্ব হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা ফয়সাল এখনই উঠছে না লকডাউন। বাড়ছে বিধিনিষেধ। সিদ্ধান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয়ের। শ্রীপুরে রাস্তা পার হতে গিয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত কঠোর লকডাউন কতোটা ফলপ্রসূ? সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ। করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে নড়াইলে মাশরাফির ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ কি কি থাকছে সাত দিনের কঠোর লকডাউনে? লাগামহীন করোনার ভয়াবহতা! সোমবার থেকে কঠোর লকডাউন, মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী। দেশের শীর্ষ পর্যটনকেন্দ্রের তালিকায় অপার সম্ভাবনার নাম সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা নতুন সাতটি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর সম্পূর্ণ করলো শ্রেষ্ঠ ডট কম রাণীনগরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে একই পরিবারের তিন জনকে অপহরণ নাটোক!




কাওরাইদে ইয়াবাসহ দুজনকে এলাকাবাসী আটকের পর ছেড়েছে চেয়ারম্যান

Reporter Name / ৯৪ Time View
Update : শুক্রবার, ১০ এপ্রিল, ২০২০




গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের ধামলই গ্রামে এলাকাবাসী ইয়াবাসহ এক যুবককে আটক করেন। পরে চেয়ারম্যান আজিজুল হককে জানানোর পর গ্রাম পুলিশ কর্তৃক পরিষদে নিয়ে তাকে ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।

বুধবার (৮ এপ্রিল ২০২০) বিকেলে মজনু নামের এক ইয়াবা ব্যবসায়ীর বাড়ি থেকে তিন পিস ইয়াবা বড়ি কিনে আসার পথে এক অটোচালক ও এক যুবককে ৩ পিস ইয়াবা বড়িসহ আটক করে স্থানীয় জনতা।

আটককৃতরা হলো, কাওরাইদ ইউনিয়নের সোনাব গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য সুলতান উদ্দিনের সন্তান রাকিব আল মামুন (২৫) ও অটোচালক (২৮)। অটো চালকের নাম জানা যায়নি। ইতিমধ্যে ইয়াবাসহ আটকের একটি ভিডিয়ো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘুরছে।

এ ব্যাপারে কাওরাইদ ইউনিয়ন গ্রাম পুলিশের দফাদার আব্দুর রশীদ যোগফলকে জানিয়েছেন, বুধবার দুপুরে চেয়ারম্যান আমাদেরকে ওখানে পাঠালে আমরা তাদেরকে তিন পিস ইয়াবাসহ পরিষদে নিয়ে আসি। ইয়াবা তিন পিস কোথায়, কি করেছে ? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, চেয়ারম্যানের কাছে বড়িসহ তাদেরকে বুঝিয়ে দেই। পরে কি করেছে তা আমার জানা নেই।

এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন স্থানীয় প্রতক্ষদর্শী জানিয়েছেন, মজনু স্থানীয় ইয়াবার ডিলার। সে একাধিকবার মাদক মামলায় জেল খেটেছে। আটককৃতরা মজনুর বাড়ি থেকে আসার পথে স্থানীয় জনতা তাকে হাতেনাতে আটক করে চেয়ারম্যানকে জানালে চেয়ারম্যান তাদেরকে ছেড়ে দেয়। হাতেনাতে ইয়াবাসহ আটক হওয়া আসামিদের ছেড়ে দিয়ে চেয়ারম্যান অন্যায় করেছে। তার শাস্তি নিশ্চিত না করলে ভবিষ্যতে তিনি এমন অপরাধ আরও করতে পারেন। তাই তার শাস্তি দাবি করছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেকটি সূত্র পরিষদের একজনের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন, ‘ওসি দেওয়ার কথা বলে আসামিদের থেকে ৩০ হাজার টাকা নিয়ে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু পুলিশকে ঘটনাস্থলে অথবা পরিষদে আসতে দেখা যায়নি’।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার শফিক হায়দার জানিয়েছেন, আমি এলাকাবাসী বলে দিয়েছি মজনুর (ইয়াবার ডিলার) বাড়িতে যদি কোনও লোকজন আসে তাহলে তাকে অ্যাটাক করবা। পরে পরিষদে নেওয়ার পর চেয়ারম্যান পুলিশকে জানিয়ে তাদেরকে ছেড়ে দিয়েছে। আমি ট্যাবলেটগুলো পরিষদে বাথরুমে ফেলে দিছি।

এ বিষয়ে ইয়াবা ট্যাবলেটসহ আটকের বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে কাওরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল হক। তিনি জানিয়েছেন, ওসিকে জানিয়ে তাদেরকে ছেড়ে দিয়েছি। এ বিষয়ে কোনও টাকা লেনদেন হয়নি।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লিয়াকত আলীর ব্যবহৃত সরকারি নম্বরে একাধিকবার ফোন করলে তিনি রিসিভ করেননি। মেসেজ পাঠানোর পরও তিনি কোনও উত্তর দেননি।

সূত্র: যোগফল





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category




side bottom