• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৩১ পূর্বাহ্ন
Headline
সমাজ উন্নয়নে অংশীদারীত্ব হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা ফয়সাল এখনই উঠছে না লকডাউন। বাড়ছে বিধিনিষেধ। সিদ্ধান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয়ের। শ্রীপুরে রাস্তা পার হতে গিয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত কঠোর লকডাউন কতোটা ফলপ্রসূ? সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ। করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে নড়াইলে মাশরাফির ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ কি কি থাকছে সাত দিনের কঠোর লকডাউনে? লাগামহীন করোনার ভয়াবহতা! সোমবার থেকে কঠোর লকডাউন, মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী। দেশের শীর্ষ পর্যটনকেন্দ্রের তালিকায় অপার সম্ভাবনার নাম সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা নতুন সাতটি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর সম্পূর্ণ করলো শ্রেষ্ঠ ডট কম রাণীনগরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে একই পরিবারের তিন জনকে অপহরণ নাটোক!




নওগাঁ-৬ আসনের এমপি ইসরাফিল আলমকে সংসদে মন্ত্রী দেখতে চায় এলাকাবাসি

Reporter Name / ২৩৮ Time View
Update : রবিবার, ৬ জানুয়ারী, ২০১৯




এক সময়ের রক্তাক্ত ও সন্ত্রাসের জণপদখ্যাত, সর্বহারা ও জেএমবি অধ্যষুতি এলাকা হিসেবে সারাদেশে পরিচিত ছিল নওগাঁ-৬ (রাণীনগর-আত্রাই) আসন । গত দশ বছর আগে এই আসনে ইসরাফিল আলম এমপি নির্বাচিত হবার পর থেকে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে শান্তি ও উন্নয়ন। ফলে শান্তি ও উন্নয়নের প্রতিষ্ঠাতা হ্যাট্রিক জয়ী এমপি ইসরাফিল আলমকে সংসদে মন্ত্রী হিসেবে দেখতে চায় রাণীনগর-আত্রাই এলাকাবসি। এই দাবি এখন এলাকার সর্বমহলে জোরালো হয়ে উঠেছে। এব্যাপারে স্থানীয়রা প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন।

স্থানীয় এবং দলীয় সুত্রে জানা গেছে,ইসরাফিল আলম,ঢাকা মহানগর শ্রমীকলীগের সাধারন সম্পাদক থাকা অবস্থায় গত ২০০১ সালে নওগাঁ -৬ (রাণীনগর-আত্রাই) আসনে প্রথম আওয়ামীলীগ থেকে মনোনিত হয়ে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করেন। সে সময়,বিএনপি তথা চারদলীয় জোটের এমপি সারাদেশে আলোচিত ব্যাক্তি আলমগীল কবীর এর কাছে পরাজিত হন। এর পর ইসরাফিল আলম ধীরে ধীরে এলাকায় নিশ্চিহ্নপ্রায় সংগঠনকে চাঙ্গা করে ঘুড়ে দ্বাড়ান।

ওই সময় এলাকায় সর্বহারা দ্বাড়া রাজনৈতিক,ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষদের প্রকাশ্য জবাই করে হত্যা, নির্যাতন ও চাঁদাবাজীর প্রচলন ছিল ব্যাপক। এসময় ইসরাফিল আলম সাহস যুগিয়ে নির্যাতিতদের পাশে দ্বাড়িয়ে সর্বাত্তক সহযোগিতা করেন। এছাড়া ২০০৪ সালে বিএনপি তথা চারদলীয় জোট সরকারের আমলে সর্বহারা নিধনের নামে জেএমবি দ্বাড়া প্রকাশ্য মানুষকে হত্যা করে উল্টো করে গাছে ঝুলিয়ে রাখাসহ নারী ধর্ষন ও গুম-খুন এবং লুটপাটের ঘটনায় এলাকা অতিষ্ঠ হয়ে ওঠে। সে সময়ও ইসরাফিল আলম এমপি অসহায়দের পাশে দ্বাড়িয়ে সর্বহারা,জেএমবিদের নির্মূলের ঘোষনা দেন। এর পর ২০০৮ সালে নির্বাচনে আলমগীর কবীরের ছোট ভাই আনোয়ার হোসেন বুলুর সাথে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করে বিজয়ী হন তিনি। এমপি নির্বাচিত হবার পর থেকে এলাকায় সর্বহারা জেএমবি ও সন্ত্রাস দমনে কঠোর ভূমিকা রাখেন এমপি ইসরাফিল আলম। এতে ধীরে ধীরে এলাকায় শান্তি আর জীবন মান উন্নয়ন ফিরতে শুরু করে। গত ২০১৪ সালেও আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয় নিয়ে আবারো নির্বাচিত হন ইসরাফিল আলম। টানা দ্বীতিয়বার এমপি নির্বাচিত হলে নিজের বিচক্ষন প্রতিভা ও রাজনৈতিক কলাকৌশলে চলমান উন্নয় আর সন্ত্রাস দমনে সচেষ্ট থাকায় গত দশ বছরে রক্তাক্ত জনপদ শান্তির ও উন্নয়নের জনপদে পরিনত হয়। এছাড়া রাস্তাঘাট, খাল,ব্রীজ,স্কুল,কলেজ,মাদ্রসা,হাসপাতাল,বিদ্যুৎসহ ব্যপক উন্নয় করেন। অতুলনিয় ভূমিকা রাখেন কৃষিখাতে । এর পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চারদলীয় জোটের সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির মোনোনিত প্রার্থী আলমগীর কবীরকে বিশাল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে টানা তৃতীয় বারের মতো হ্যাট্রিক জয় করেন এমপি ইসরাফিল আলম। স্থানীয় জনসাধরনের অভিমত, এমপি ইসরাফিল আলমকে মন্ত্রীত্ব দেয়া হলে এলাকার ন্যায় সারাদেশে তার প্রতিভা বিকশিত করার সুযোগ পাবেন।

রাণীনগর থানা যুবলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি রুহুল আমিন, আবাদপুকুর মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ জিএম মাসুদ রানা জুয়েল, কালীগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বাবলু মন্ডলসহ এলাকার সর্বস্তরের সাধারন জনগন ও সচেতন মহল রাণীনগর-আত্রাই এলাকার সর্বহারা,জেএমবি ও সন্ত্রাসদমনকারী, শান্তি ও উন্নয়ন প্রতিষ্ঠাতা,তিন তিন বারের নির্বাচিত এমপি ইসরাফিল আলমকে সংসদে মন্ত্রীত্ব দেয়ার জোরালো দাবি জানিয়েছেন।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category




side bottom