• বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:১৯ পূর্বাহ্ন
Headline
সমাজ উন্নয়নে অংশীদারীত্ব হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা ফয়সাল এখনই উঠছে না লকডাউন। বাড়ছে বিধিনিষেধ। সিদ্ধান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয়ের। শ্রীপুরে রাস্তা পার হতে গিয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত কঠোর লকডাউন কতোটা ফলপ্রসূ? সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ। করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে নড়াইলে মাশরাফির ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ কি কি থাকছে সাত দিনের কঠোর লকডাউনে? লাগামহীন করোনার ভয়াবহতা! সোমবার থেকে কঠোর লকডাউন, মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী। দেশের শীর্ষ পর্যটনকেন্দ্রের তালিকায় অপার সম্ভাবনার নাম সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা নতুন সাতটি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর সম্পূর্ণ করলো শ্রেষ্ঠ ডট কম রাণীনগরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে একই পরিবারের তিন জনকে অপহরণ নাটোক!




নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের আস্থার প্রতিক আশরাফুজ্জামান মুকুল

Reporter Name / ৪৯৩ Time View
Update : রবিবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৯




বাপ্পী খান, ঢাকা:  আশরাফুজ্জামান মুকুল শুধু একটি নাম নয়, নড়াইল জেলার শতশত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের প্রাণের স্পন্দন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সোহাগ, নাজমুল কমিটি থাকাকালীন সময়ে তুফায়েল মাহমুদ তুফান কে সভাপতি এবং আশরাফুজ্জামান মুকুল কে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করে নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দেয়া হয়। এরপর উক্ত কমিটির মেয়াদ শেষ হলে সাইফুর রহমান সোহাগ ও জাকির হোসেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন আশরাফুজ্জামান মুকুল কে নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও নিলয় রায় বাধন কে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করে নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দেয়।

তাদের এ কমিটির মেয়াদ শেষ হওয়ায় গত ০১ নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য উক্ত কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে আগামী ১ বছরের জন্য নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি অনুমোদন দেন যেখানে চঞ্চল শাহরিয়ার মীম কে সভাপতি ও পলাশ হাসান কে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীর সাথে আলাপকালে জানা যায়, আশরাফুজ্জামান মুকুল অতীতে নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং পরবর্তীতে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি থাকাকালীন সময়ে ছাত্রলীগ কে একতাবদ্ধ রাখতে সর্বাত্মক চেষ্টা করেছেন। সকলের বিপদ-আপদে তিনি সর্বদা পাশে থাকার চেষ্টা করেছেন। দিন-রাত এক করে তিনি রাজনীতির পেছনে শ্রম দিয়েছেন এবং নড়াইল জেলা ছাত্রলীগ কে সদা জাগ্রত ও যে কোন পরিস্থিতি মোকাবিলায় সর্বদা প্রস্তুত রাখতে তাদের পাশে থেকে তাদেরকে সর্বদা সাহস যুগিয়েছেন। নড়াইল জেলার প্রতিটি আনাচে কানাচে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের প্রতিটি ছাত্রলীগ কর্মীকে সাথে নিয়ে তিনি সর্বদা রাজপথে অবস্থান করেছেন। নড়াইল জেলায় সকল জামায়াত বি.এন.পি নেতা- কর্মীদের আতংক তিনি। জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য তিনি জীবনের মায়া ত্যাগ করে প্রতিটি আন্দোলন, সংগ্রামে সর্বদাই সামনে থেকে নেতৃত্ব প্রদান করেছেন। রাজপথের নেতৃত্বে তিনি এতোটাই সক্রিয় ছিলেন যে নিজের ডানহাতের আঙুল কে তিনি রাজপথে বলি দিতেও দ্বিধাবোধ করেননি যার ফলে তিনি খাওয়া-দাওয়া,লেখালিখি সহ দৈনন্দিন জীবনের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ ডান হাতের পরিবর্তে বাম হাতে করে থাকেন। এককথায় নড়াইল জেলার প্রতিটি ছাত্রলীগ কর্মীর হৃদয়ে খুব কম সময়েই জায়গা করে নেয়া মানুষটির নাম আশরাফুজ্জামান মুকুল।

এক প্রশ্নের জবাবে জনাব আশরাফুজ্জামান মুকুল বলেন, ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর নিজ হাতে গড়া সংগঠন। আর তাই এটি আমার প্রানের সংগঠন। যেদিন থেকে বঙ্গবন্ধুর নীতি আর আদর্শকে বুকে ধারণ করতে শিখেছি সেদিন থেকেই রাজনীতি কে পেশা নয় আমার নেশা হিসেবে নিয়েছি। তিনি বলেন, ছাত্রলীগ থেকে সাবেক তো একদিন হতেই হবে এটাই স্বাভাবিক ব্যাপার, জায়গা করে দিতে নতুনদের। আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আপা ও ছাত্রলীগের রাজনীতি করে উঠে এসেছেন। বরং এটা ভেবে ভাল লাগছে যে আমারই প্রিয় অনুজদের হাতে নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের দায়িত্ব তুলে দেয়া হয়েছে আর আমার দৃঢ় বিশ্বাস তারা সে দায়িত্ব অত্যন্ত সুনামের সাথে পালন করবে। তিনি আরো বলেন, নড়াইল জেলা ছাত্রলীগ একটি ঐক্যবদ্ধ পরিবার, এখানে কোন ভেদাভেদ নেই। আমাদের একটাই পরিচয় আমরা সকলেই দেশরত্ন শেখ হাসিনার কর্মী আর তিনিই আমাদের একমাত্র অভিভাবক ও আশ্রয়স্থল।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং পরবর্তীতে সভাপতি হয়েছি যেটা শুধু রেকর্ডই নয় আমার জীবনে অত্যন্ত গর্বের বিষয়। তিনি বলেন আমি হলফ করে বলতে পারি নিজের জীবনের চেয়ে অধিক গুরুত্ব দিয়ে রাজনীতি করেছি বলেই এ সকল দায়িত্ব পালন করতে সফল হয়েছি। তিনি জানান বঙ্গবন্ধুর নীতি আর আদর্শের এ রাজনীতি আমার রক্তে মিশে আছে আর তাই কখনো রাজনীতি কে পেশা হিসেবে নেয়নি, ছাত্রলীগের দীর্ঘমেয়াদে দায়িত্বে থাকা অবস্থায় ও আমার ব্যক্তিগত কোন টাকা-পয়সা, ব্যাংক, ব্যালেন্স বা সম্পত্তি নেই।

কিছু অভিযোগের বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী কিন্তু তার চেয়ে বড় পরিচয় আমি একজন মানুষ, আর পৃথিবীতে কোন মানুষই কম-বেশি ভুলের উর্ধ্বে নয় আর তাই কিছু ভুল ত্রুটি আমার ও থাকতে পারে কিন্তু রাজনীতির স্বার্থে, দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্বার্থে জীবনে কখনো কোন আপোষ করিনি আর বেঁচে থাকতে কখনো করবোনা।

সর্বোপরি তিনি বলেন,যেহেতু রাজনীতি করি, দেশকে ভালোবাসি, নড়াইল জেলা কে ভালোবাসি তাই দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও কাজ করে যাবো। তিনি বলেন আমাদের সকলের প্রাণপ্রিয়,আমাদের দিকনির্দেশক, নড়াইল ০২ আসনের নির্বাচিত প্রতিনিধি সংসদ সদস্য মাশরাফি ভাইয়ের সকল কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে এবং নড়াইল জেলাকে একটি আধুনিক জেলা হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে তার পাশে থেকে কাজ করে যাবো। এ জেলার মানুষের ভালোবাসা নিয়ে আমি অবিরাম কাজ করে যেতে চাই এবং নড়াইল জেলা ছাত্রলীগ আমার প্রাণের সংগঠন সুতারাং বর্তমান নেতৃত্বের যে কোন প্রয়োজনে পাশে আছি, থাকবো সর্বদা। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category




side bottom