বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৩৭ অপরাহ্ন
Title :
রাণীনগরে নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রাণীনগরে নিখোঁজের চার দিনের মাথায় পুকুর থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার রাণীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পেলেন “নৌকা” সম্পাদক নিলেন “মটরসাইকেল”প্রতিক নড়াইলে মাশরাফির পক্ষ থেকে আশরাফুজ্জামান মুকুলের নেতৃত্বে বিশাল শোডাউন রিয়েলিটি শো “বাংলার গায়েন” ১০০ জন প্রতিযোগীতার মধ্যে অবস্থান করে নিয়েছেন নওগাঁর মেয়ে নূসরাত মাহী। রাণীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের ধুম শুরু তরুন যুবনেতা আলভির শুভেচ্ছা ব্যানারে রঙ নিক্ষেপের অভিযোগ রাণীনগরে ৫ বছরের শিশুকে যৌন নিপীরনের অভিযোগে থানায় মামলা পারিবারিক কবরস্থান জিয়ারত করলেন সদ্য নির্বাচিত এমপি হেলাল নওগাঁ-৬,আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলাল নির্বাচিত




রাণীনগরে ভারী বৃষ্টিপাত হলে প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ধান নষ্টের আশংকা!

Reporter Name
  • আপডেট টাইম: মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০

নওগাঁর রাণীনগর আবাদপুকুর-কালীগঞ্জ আঞ্চলিক মহা সড়কে রক্তদহ বিলের চারটি খালসহ পানি নিষ্কাশনের প্রায় ১২টি সেতু-কালভার্টের মূখ মাটি দিয়ে ভরাট করে ধীর গতিতে চলছে নির্মান কাজ। ফলে যে কোন সময় ভারী বৃষ্টিপাত হলে পানিতে তলে রক্তদহবিল এলাকার প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ধান নষ্টের আশংকা করছেন কৃষকরা। ফসল বাঁচাতে দ্রুত নির্মান কাজ শেষ করে খালসহ সেতু-কালভার্টের মূখ খুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।

জানাগেছে,রাণীনগর গোল চত্বর থেকে আবাদপুকুর হয়ে কালীগঞ্জ পর্যন্ত প্রায় ২২ কিলোমিটার আঞ্চলিক মহাসড়ক নতুন করে মজবুত পাকা করণ ও প্রসস্ত এবং ৪টি সেতু ও ২৩ টি কালভার্ট ভেঙ্গে নতুন করে নির্মান কাজের টেন্ডার দেয়া হয়।

সড়ক ও সেতু-কালভার্ট নির্মান করতে ব্যয় ধরা হয় ১০৫ কোটি টাকা। গত ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে টেন্ডার শেষে কাজ শুরু করলে প্রথম দিকে শুধু মাত্র চারটি সেতু ও ৫/৬টি কালভার্ট ভেঙ্গে কাজ শুরু করে।সেতু-কালভার্ট ও সড়ক পাকা করণে এসব কাজের সময় সিমা প্রাথমিকভাবে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হলেও পরে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আবেদন করে চলতি বছরের ৮ মে থেকে জুলাই পর্যন্ত সময় নেয় । বছরের পুরো শুষ্ক মৌসুম পার হয়ে গেলেও সেতু কালভার্টের কাজ না করে এখন এসে রক্তদহ বিল থেকে বয়ে আসা রতনডারী খাল,রক্তদহ খাল,সিম্বা খাল ও করজগ্রাম খালের মূখসহ ১২ টি সেতু কালভার্টের মূখ মাটি দিয়ে ভরাট করে বন্ধ রেখে পার্শ্বরাস্তা নির্মান করে ধীর গতিতে চলছে নির্মান কাজ। ইতি মধ্যে দুই/একটি কালভার্টের কাজ শেষ হলেও কয়েকটি কালভার্ট এখনো ভাঙ্গা হয়নি।

আবার যেগুলো ভাঙ্গা হয়েছে সেগুলোর কাজ চলছে খুব ধীর গতিতে। রক্তদহ বিলের চারে দিকে রাণীনগরের অংশ,সান্তাহার ও বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার অংশ মিলে প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমিতে ইরি/বোরো ধান রয়েছে। আগাম জাতের বেশ কিছু ধানের শীষ বের হতে শুরু করেছে।

বিল থেকে পানি নিষ্কাশন বা বের হওয়ার সবগুলো পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যে কোন সময় ভারী বৃষ্টিপাত হলে বিল এলাকার প্রায় দুই হাজার হেক্টর জমির ধান পানির নিচে তলে নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশংকা করছেন কৃষকরা। কৃষকরা বলছেন সবগুলো সেতু-কালভার্টের মূখ খোলা অবস্থায় থাকাকালে ধান কাটার শেষ সময়ে ভারী বৃষ্টিপাতে নিচু এলাকার ধান পানিতে তলে নষ্ট হওয়ার উপক্রম দেখা দেয়। এর মধ্যে বিল থেকে পানি নিষ্কাশনের সবগুলো খাল,সেতু-কালভার্টের মূখ মাটি দিয়ে বন্ধ করেছে,যে কোন সময় ভারী বৃষ্টিপাত হলে ফসল ঘরে তোলার কোন সুযোগ থাকবেনা ।

বিলপালশা গ্রামের কৃষক সাইদুর রহমান,বিলকৃষ্ণপুর গ্রামের আব্দুল মমিন,সিম্বা গ্রামের নাছির উদ্দীন,রাজাপুর গ্রামের হবিবর রহমানসহ প্রায় অর্ধশত কৃষকরা বলেন,রাণীনগর উত্তর-পূর্বাঞ্চল,বগুড়ার আদমদীঘি এবং সান্তাহার অঞ্চলসহ আশে পাশের এলাকা থেকে পানি এসে রক্তদহ বিলে জমা হয়। এই পানি চারটি খাল এবং ১২টি সেতু-কালভার্ট দিয়ে বের হয়ে যায়।পানি বের হওয়ার সবগুলো পথ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। যে কোন সময় বৃষ্টিপাত হলে হাজার হাজার হেক্টর জমির ধান পানির নিচে তলে নষ্ট হয়ে যাবে।

তাই ধান ও কৃষকদের বাঁচাতে দ্রুত কাজ শেষ করে খাল,সেতু-কালভার্টের মূখ খুলে দেয়ার দাবি জানিয়েছেন কৃষকরা।
রাণীনগর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শহিদুল ইসলাম কৃষকদের এমন প্রবল আশংকার কথা স্বীকার করে বলেন, খুব দ্রুত তম সময়ের মধ্যে সেতু-কালভার্টের মূখ খুলে না দিলে বৃষ্টিপাতে ধানের ব্যপক ক্ষতি হবে। এব্যাপারে স্থানীয় এমপি মহোদয় এবং উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি।

নওগাঁ জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল হক বলেন, করোনা ভাইরাসের কারনে কাজ পিছিয়ে গেলো। তার পরেও সমস্যা হবেনা জানিয়ে তিনি বলেন, প্রতিটি সেতু-কালভার্টের মূখে মাটির নিচ দিয়ে পানি নিষ্কাশনের জন্য পাইপ দেয়া আছে।যদিও সে রকম অবস্থা দেখা যায় তাহলে পানি নিস্কাশনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।







এ জাতীয় আরো খবর..




FOLLOW US

ই-মেইল: ‍atozsangbad@gmail.com
ফেইসবুক
ইউটিউব

পুরাতন খবর

sidebar middole




side bottom




© All rights reserved © atozsangbad.com
Design & Developed by: ATOZ IT HOST
Tuhin
x