শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৫৩ পূর্বাহ্ন
Title :
রাণীনগরে সপ্তাহ ব্যাপী নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন বিষয়ক আলোচনা সভা রাণীনগরে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে ইউপি চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন রাণীনগরে প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়ন বিষয়ক মত বিনিময় সভা গাইবান্ধায় নবাগত অফিসার ইনচার্জ-এর সাথে নিযাচা’র মতবিনিময় সভা রাণীনগরে নারী উন্নয়ন ও ক্ষমতায়ন বিষয়ক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রাণীনগরে নিখোঁজের চার দিনের মাথায় পুকুর থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার রাণীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি পেলেন “নৌকা” সম্পাদক নিলেন “মটরসাইকেল”প্রতিক নড়াইলে মাশরাফির পক্ষ থেকে আশরাফুজ্জামান মুকুলের নেতৃত্বে বিশাল শোডাউন রিয়েলিটি শো “বাংলার গায়েন” ১০০ জন প্রতিযোগীতার মধ্যে অবস্থান করে নিয়েছেন নওগাঁর মেয়ে নূসরাত মাহী। রাণীনগর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের ধুম শুরু




রূপগঞ্জে ধুম পড়েছে মাথা ন্যাড়ার

Reporter Name
  • আপডেট টাইম: মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২০

হঠ্যাৎ করেই যেনো মাথা ন্যাড়া করার ধুম পড়ে গেছে রূপগঞ্জে। কিন্তু এর পক্ষে যুক্তি আসছে একেক জনের কাছে একেক রকম। তবে করোনার কারণেই যে এমনটা হচ্ছে এটা নিয়ে বিলকুল কোন সন্দেহ নেই।

মাথা ন্যাড়া করা এমন কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলেও তেমন হিসেব মিলেছে। গত কয়েকদিনে কয়েক হাজার পুরুষ-তরুণ-কিশোর মাথা ন্যাড়া করে ফেলেছেন। বাদ যায়নি শিশুও। বেশ কয়েকজন নারীর ন্যাড়া হওয়ারও খবর রয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরেই হঠ্যাৎ রূপগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় মাথা ন্যাড়া করার ধুম পড়ে গেছে।

উপজেলার তারাব পৌরসভা, কাঞ্চন পৌরসভা, দাউদপুর ইউনিয়ন, কায়েতপাড় ইউনিয়ন, রূপগঞ্জ সদর ইউনিয়নসহ বেশ কয়েকটি ইউনিয়নে এ চিত্র দেখা গেছে। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, করোনার প্রভাবের কারণেই অনেকে মাথা ন্যাড়া করে ফেলেছে।

কথা হয় বিরাব এলাকার তরুন তারেক মাহমুদের সাথে তিনি বলেন সেলুন বন্ধ থাকার কারণে নিজের চুল নিজে কাটা সম্ভব নয় তাই একেবারে ন্যাড়া করে ফেলছেন। আবার কেউ বলছেন চুল বড় হলে সর্দি-ঠান্ডা লাগে। এ থেকে বাঁচতে মাথা ন্যাড়া করেছেন।

কেউবা বলছেন সেলুন থেকে চুল ফেলাতে গিয়ে ভয় বেশি। কারণ সেলুনের শান (কেচি), ক্ষুর, চিরুণি বিভিন্ন জনের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।

কেন্দুয়া পাড়ার এক তরুন ওয়াসিম উদ্দীনকে জিজ্ঞেস করতেই বলে, সেলুন বন্ধ। চুল কাটুম কই, আর খুব গরমও লাগে এর লেইগ্যা চুল ফালাইয়া দিছি।

মাহনা এলাকার এক তরুন মশিউর রহমান স্ববুজকে জিজ্ঞেস করতেই বলে উঠেন খুশিতে ঠ্যালায় ভাল্লাগে, কি যে শান্তি! বাতাস একেবারে মাথার ভিতরে ঢুকে যায়। তারপর তিনি আরও বলেন, চুল বড় হয়ে গিয়েছিলো, সেলুন সব বন্ধ। অনেকদিন ধরেই ভাবছিলাম কি করা যায়। শেষ পর্যন্ত এটা ই সমাধান পেলাম।

কেন্দুয়া পাড়া আরও এক তরুন কাউছার আহমেদ জানান, সেলুন বন্ধ আর আফিস বন্ধ, অনেক দিন যাবৎ ফেলা হচ্ছে না, এই সুযোগ এ ফেলে দিলাম।







এ জাতীয় আরো খবর..




FOLLOW US

ই-মেইল: ‍atozsangbad@gmail.com
ফেইসবুক
ইউটিউব

পুরাতন খবর

sidebar middole




side bottom




© All rights reserved © atozsangbad.com
Design & Developed by: ATOZ IT HOST
Tuhin
x