• শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৮ পূর্বাহ্ন
Headline
সমাজ উন্নয়নে অংশীদারীত্ব হয়ে কাজ করে যাচ্ছেন সাবেক ছাত্রনেতা ফয়সাল এখনই উঠছে না লকডাউন। বাড়ছে বিধিনিষেধ। সিদ্ধান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয়ের। শ্রীপুরে রাস্তা পার হতে গিয়ে কাভার্ড ভ্যান চাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত কঠোর লকডাউন কতোটা ফলপ্রসূ? সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ। করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে নড়াইলে মাশরাফির ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ কি কি থাকছে সাত দিনের কঠোর লকডাউনে? লাগামহীন করোনার ভয়াবহতা! সোমবার থেকে কঠোর লকডাউন, মাঠে থাকবে সেনাবাহিনী। দেশের শীর্ষ পর্যটনকেন্দ্রের তালিকায় অপার সম্ভাবনার নাম সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা নতুন সাতটি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর সম্পূর্ণ করলো শ্রেষ্ঠ ডট কম রাণীনগরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে একই পরিবারের তিন জনকে অপহরণ নাটোক!




শার্শায় গৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ৩’শতাধিক পরিবারের ঘর নিশ্চিত

Reporter Name / ১৫৬ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯




যশোরের শার্শায় জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং দূর্যোগ ব্যস্থাপনা মন্ত্রণালয় অতি দরিদ্র পরিবারে মাঝে ১টি করে বাসগৃহ নির্মাণ করে দিয়েছেন। পাকা ঘর পেয়ে খুশি হত দরিদ্র এসব পরিবার। তাই সরকারের এমন উদ্যেগকে স্বাগত জানিয়েছেন তারা।
যশোরের শার্শা উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে হত দরিদ্রদের দুর্দশা লাঘবে জমি আছে ঘর নাই ও দূর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় পাকা বাড়ি তৈরি করে দিয়েছেন সরকার। জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পে ৩ শত ৩৩টি ও দূর্যোগ সহনীয় প্রকল্পে আওতায় ২৩টি পরিবারকে ঘর দেওয়া হয়েছে। রোদ বৃষ্টি ঝড়ে ভাঙ্গা চুড়া ঘরে অনেক কষ্টে দিন যাপন করা মানুষ গুলো কখনো কল্পনা করতে পারেনি এমন বাড়িতে তারা বসবাস করতে পারবেন। এমন পরিস্থিতিতে নতুন বাড়ি পেয়ে খুশি তারা।
শার্শা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুলক কুমার মন্ডল বলেন, জমি আছে ঘর নাই বা ঘর জরাজীর্ণ প্রকল্পটি প্রধানমন্ত্রীর যুগান্তকারী পদক্ষেপ। যারা গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র মানুষ, যাদের জমি আছে ঘর নির্মাণ করার সামর্থ নেই। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। শার্শা উপজেলায় ৩ শত ৩৩টি ঘর বরাদ্ধ পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যে ঘর নির্মাণ কাজ সুন্দর ভাবে সম্পন্ন হয়েছে।
 শার্শা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকত লাল্টু মিয়া বলেন, শার্শা উপজেলায় ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো ও রক্ষনা-বেক্ষন কর্মসুচির আওতায় ২৩টি দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ করা হয়েছে। গুণগত মান বজায় রেখে সুন্দর ভাবে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তাতে উপকার ভোগীরা বসবাস করছেন। আগামীতে ঘরের পরিমাণ বাড়ানো হলে প্রান্তিক মানুষের চাহিদা পূরণ করা সম্ভব হবে।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category




side bottom